বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
‘হাবিবি’ নিয়ে আসছেন নুসরাত ফারিয়া “এসো নিজেকে নিজে চিনি” পরিবার আয়োজিত বাউল গানের প্রতিযোগিতার গ্রান্ড ফিনালে ২০ অক্টোবর শুধুমাত্র অনুদানের সিনেমা দিয়েই মুখর সিনেপাড়া বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ও স্কটল্যান্ডের সম্ভাব্য একাদশ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দেখা যাবে যেসব চ্যানেলে ‘বাংলাদেশকে আমরা পাপুয়া নিউগিনির চেয়ে ওপরে দেখি না’: স্কটল্যান্ড কোচ শেন বার্জার টি ২০ বিশ্বকাপ ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে আজ শুরু ইভ্যালির ওয়েবসাইট-অ্যাপ বন্ধের ঘোষণা কুমিল্লার ঘটনার পেছনের কারণ খোঁজা হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ‘দেশ বিক্রি করে তো আমি ক্ষমতায় আসব না’ এটাই বাস্তব

১৯৭৫-২০১৯ সাল পর্যন্ত শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র অভিনেতা ও অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার লাভ করেন যারা তাঁদের নাম ও অভিনীত চলচ্চিত্র

ফরিদুল আলম ফরিদ
  • প্রকাশ সময়ঃ শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১
  • ১০৪ বার পড়া হয়েছে

১৯৭৫-২০১৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র অভিনেতা ও অভিনেত্রী হিসেবে পুরষ্কার লাভ করেন যারা তাঁদের নাম ও অভিনীত চলচ্চিত্রঃ

১৯৭৫ (১ম)- লাঠিয়াল ছবিতে আনোয়ার হোসেন ও বাঁদী থেকে বেগম ছবিতে ববিতা।

১৯৭৬ (২য়)- কি যে করি ছবিতে রাজ্জাক ও নয়নমনি ছবিতে ববিতা।

১৯৭৭ (৩য়)- সীমানা পেরিয়ে ছবিতে বুলবুল আহমেদ ও বসুন্ধরা ছবিতে ববিতা।

১৯৭৮ (৪র্থ)- যৌথভাবে অশিক্ষিত ছবিতে রাজ্জাক এবং বধু বিদায় ছবিতে বুলবুল আহমেদ ও সারেং বৌ ছবিতে কবরী।

১৯৭৯ (৫ম)- অভিনেতার পুরষ্কার দেয়া হয়নি ও সূর্য দীঘল বাড়ী ছবিতে ডলি আনোয়ার।

১৯৮০ (৬ষ্ট)- শেষ উত্তর ছবিতে বুলবুল আহমেদ ও সখী তুমি কার ছবিতে শাবানা।

১৯৮১- পুরষ্কার প্রদান হযনি।

১৯৮২ (৭ম)- বড় ভালো লোক ছিলো ছবিতে রাজ্জাক ও দুই পয়সার আলতা ছবিতে শাবানা।

১৯৮৩ (৮ম)- লালু ভুলু ছবিতে মাষ্টার সোহেল ও নাজমা ছবিতে শাবানা।

১৯৮৪ (৯ম)- চন্দ্রনাথ ছবিতে রাজ্জাক ও ভাত দে ছবিতে শাবানা।

১৯৮৫ (১০ম)- মা ও ছেলে ছবিতে আলমগীর ও রামের সুমতি ছবিতে ববিতা।

১৯৮৬ (১১তম)- যৌথভাবে শুভদা ছবিতে গোলাম মোস্তফা এবং পরিণীতা ছবিতে ইলিয়াস কাঞ্চন ও যৌথভাবে শুভদা ছবিতে আনোয়ারা এবং পরিণীতা ছবিতে অঞ্জনা।

১৯৮৭ (১২তম)- যৌথভাবে অপেক্ষা ছবিতে আলমগীর এবং দ্বায়ী কে ছবিতে এটিএম শামসুজ্জামান ও অপেক্ষা ছবিতে শাবানা।

১৯৮৮ (১৩তম)- যোগাযোগ ছবিতে রাজ্জাক ও জীবন ধারা ছবিতে রোজিনা।

১৯৮৯ (১৪তম)- ক্ষতিপূরণ ছবিতে আলমগীর ও রাঙ্গভাবি ছবিতে শাবানা।

১৯৯০ (১৫তম)- মরনের পরে ছবিতে আলমগীর ও মরনের পরে ছবিতে শাবানা।

১৯৯১ (১৬তম)- পিতা মাতা সন্তান ছবিতে আলমগীর ও অচেনা ছবিতে শাবানা।

১৯৯২ (১৭তম)- অন্ধ বিশ্বাস ছবিতে আলমগীর ও শঙ্খনীল কারাগার ছবিতে ডলি জহুর।

১৯৯৩ (১৮তম)- পদ্মা নদীর মাঝি ছবিতে রাইসুল ইসলাম আসাদ ও পদ্মা নদীর মাঝি ছবিতে চম্পা।

১৯৯৪ (১৯তম)- দেশ প্রেমিক ছবিতে আলমগীর ও আগুনের পরশমণি ছবিতে বিপাশা হায়াত।

১৯৯৫ (২০তম)- অন্য জীবন ছবিতে রাইসুল ইসলাম আসাদ ও অন্য জীবন ছবিতে চম্পা।

১৯৯৬ (২১তম)- অজান্তে ছবিতে সোহেল রানা ও নিমর্ম ছবিতে শাবনাজ।

১৯৯৭ (২২তম)- দুখাই ছবিতে রাইসুল ইসলাম আসাদ ও হাঙর নদী গ্রেনেড ছবিতে সুচরিতা।

১৯৯৮ (২৩তম)- হঠাৎ বৃষ্টি ছবিতে ফেরদৌস ও অভিনেতীর পুরষ্কার প্রদান হয়নি।

১৯৯৯ (২৪তম)- শ্রাবণ মেঘের দিন ছবিতে জাহিদ হাসান ও ম্যাডাম ফুলি ছবিতে শিমলা।

২০০০ (২৫তম)- দুই দুয়ারী ছবিতে রিয়াজ ও উত্তরের ক্ষেপ ছবিতে চম্পা।

২০০১ (২৬তম)- লাল শালু ছবিতে রাইসুল ইসলাম আসাদ ও মেঘলা আকাশ ছবিতে মৌসুমী।

২০০২ (২৭তম)- ইতিহাস ছবিতে কাজী মারুফ ও অভিনেত্রীর পুরস্কার প্রদান হয়নি।

২০০৩ (২৮তম)- বীর সৈনিক ছবিতে মান্না ও কারাগার ছবিতে পপি।

২০০৪ (২৯তম)- মাতৃত্ব ছবিতে হুমাযুন ফরীদি ও ব্যাচেলর ছবিতে অপি করিম।

২০০৫ (৩০তম)- লাল সবুজ ছবিতে মাহফুজ আহমেদ ও দুই নয়নের আলো ছবিতে শাবনূর।

২০০৬ (৩১তম)- ঘানি ছবিতে আরমান পারভেজ মুরাদ ও ঘানি ছবিতে নাজনীন হাসান চুমকি।

২০০৭ (৩২তম)- দ্বারুচিনি দ্বীপ ছবিতে রিয়াজ ও দ্বারুচিনি দ্বীপ ছবিতে জাকিয়া বারি মম।

২০০৮ (৩৩তম)- কি যাদু করিলা ছবিতে রিয়াজ ও মেঘের কোলে রোদ ছবিতে পপি।

২০০৯ (৩৪তম)- যৌথভাবে গঙ্গাযাত্রা ছবিতে ফেরদৌস এবং মনপুরা ছবিতে চঞ্চল চৌধুরী ও গঙ্গাযাত্রা ছবিতে পপি।

২০১০ (৩৫তম)- ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না ছবিতে শাকিব খান ও ওরা আমাকে ভাল হতে দিল না ছবিতে পূর্ণিমা।

২০১১ (৩৬তম)- কুসুম কুসুম প্রেম ছবিতে ফেরদৌস ও গেরিলা ছবিতে জয়া আহসান।

২০১২ (৩৭তম)- খোদার পরে মা ছবিতে শাকিব খান ও চোরাবালি ছবিতে জয়া আহসান।

২০১৩ (৩৮তম)- মৃত্তিকা মায়া ছবিতে তিতাস জিয়া ও যৌথভাবে দেবদাস ছবিতে মৌসুমী এবং মৃত্তিকা মায়া ছবিতে শর্মি মালা।

২০১৪ (৩৯তম)- এক কাপ চা ছবিতে ফেরদৌস ও যৌথভাবে তারকাঁটা ছবিতে মৌসুমী এবং জোনাকির আলো ছবিতে বিদ্যা সিনহা মিম।

২০১৫ (৪০তম)- যৌথভাবে আরো ভালোবাসবো তোমায় ছবিতে শাকিব খান এবং জিরো ডিগ্রী ছবিতে মাহফুজ আহমেদ ও জিরো ডিগ্রী ছবিতে জয়া আহসান।

২০১৬ (৪১তম)- আয়নাবাজি ছবিতে চঞ্চল চৌধুরী ও যৌথভাবে অস্তিত্ব ছবিতে নুসরাত ইমরোজ তিশা এবং শঙ্খচিল ছবিতে কুসুম সিকদার।

২০১৭ (৪২তম)- যৌথভাবে সত্বা ছবিতে শাকিব খান এবং ঢাকা এ্যাটাক ছবিতে আরেফিন শুভ ও হালদা ছবিতে নুসরাত ইমরোজ তিশা।

২০১৮ (৪৩তম)- যৌথভাবে পুত্র ছবিতে ফেরদৌস এবং জান্নাত ছবিতে সায়মন সাদিক ও দেবী ছবিতে জয়া আহসান।

২০১৯ (৪৪তম)- আবার বসন্ত ছবিতে তারিক আনাম খান ও ন ডরাই ছবিতে সুনেরাহ বিনতে কামাল।

 

দয়া করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 Janatarnissash
Theme Dwonload From